Acer Iconia Tab A500 এর রিভিউ

হাইলাইটস
রেটিং
কিনবেন কোত্থেকে
সুবিধা: সুন্দর ডিজাইন, টেকসই ও মজবুত গঠন। কিবোর্ড বা মাউজ ব্যবহারের সুবিধা, এইচডিএমআই পোর্ট ব্যবহার করে বড় স্ক্রিণে কানেক্ট করার সুবিধা, মাইক্রো এসডি পোর্ট। দারুন গ্রাফিক্স পাওয়ার।


অসুবিধা: পিকজেল ঘনত্ব কম, এবং মাত্র ২৫৬শ কালার। দাম বেশী।
3.5/5N/A

acera500kAcer Iconia Tab A500-এ সংযোজিত হয়েছে NVIDIA সিপিইউ এবং জিপিইউ। ট্যাবটিতে ২.০ ইউএসবি পোর্ট এবং এইচডিএমআই পোর্ট রয়েছে। এর ফ্রণ্ট ক্যামেরাটি ২ মেগাপিকজেল, এবং ব্যাক ক্যামেরা ৫ মেগাপিকজেল। ট্যাবটির ১০.১ ইঞ্চি স্ক্রিণের পিকজেল ঘনত্ব ১৪৯ppi। ট্যাবটির অনন্য বৈশিষ্ট্য হলো এটি ইউএসবি ফ্ল্যাশ ড্রাইভ সাপোর্ট করে। ট্যাবটিতে মাইক্রো এইচডিএমআই পোর্টও রয়েছে। অর্থাৎ ট্যাবটিকে টিভির সাথে কানেক্ট করেও ব্যবহার করা যাবে।

ডিজাইন

Acer Iconia Tab A500-ট্যাবটির ডিজাইন প্রশংসার দাবীদার। এর বডিটি এলুমিনিয়ামের তৈরি। এর কার্ভগুলোও বেশ হট। পেছনে টেক্সচারড ফিনিশিং থাকায় ধরতেও বেশ সুবিধা। এক কথায় ট্যাবটিকে সেক্সি না বলে উপায় নেই। এর পুরুত্ব ০.৫২ ইঞ্চি। চওড়ায় ট্যাবটি ৬.৯৭ইঞ্চি এবং দৈর্ঘে ১০.২৪ ইঞ্চি। এর স্ক্রিণটি ১০.১ ইঞ্চি। ওজন ৭৩০ গ্রাম। ট্যাবটির অন্যন্য ফিচার হলো এর ইউএসবি ২.০ পোর্ট আছে যেটা দিয়ে আপনি ট্যাবটির সাথে ফ্ল্যাশড্রাইভ বা ইউএসবি কিবোর্ড কানেক্ট করতে পারবেন। রেগুলার ইউএসবি পোর্টের পাশেই আছে একটি রিসেট পয়েন্ট এবং মাইক্রো ইউএসবি পোর্ট। ডানপাশের উপরের দিকে রয়েছে এর চার্জিং পোর্ট। ট্যাবটির বামপাশে দ্যাখা যাবে একটি মাইক্রো এইচডিএমাই (HDMI) পোর্ট যা ট্যাবকে টিভির সাথে কানেক্ট করে ব্যবহার করার সুবিধা দেবে। অর্থাৎ আপনার ট্যাবের সব কাজগুলোই টিভির বড় স্ক্রিণে করতে পারবেন। আর ট্যাব-এ যদি ৭২০ পিক্সেলের ভিডিও থাকে সেটাও টিভিতে দেখতে পারবেন।

ট্যাবটির বামপাশে উপরের দিকে রয়েছে পাওয়ার বাটন এবং ৩.৫ মি.মি হেডফোন পোর্ট। ট্যাবটির উপরের দিকে রয়েছে একটি ভলিউম কন্ট্রল বাটন, যার ঠিক নিচে আছে লক-আনলক বাটন এবং কভারযুক্ত মাইক্রো এসডি কার্ড স্লট। ট্যাবটির নিচের দিকে রয়েছে ডকিং পোর্ট। ট্যাবটির ফ্রণ্ট ক্যামেরাটি ২ মেগাপিক্সেল এবং ব্যাক ক্যামেরাটি ৫ মেগাপিক্সেল। প্রাইমারি বা ব্যাক ক্যামেরাটির সাথে একটি এলইডি ফ্ল্যাশ লাইটও আছে।

পারফরমেন্স

acera500jAcer Iconia Tab A500 ট্যাবটিতে সংযোজিত হয়েছে ডুয়াল কোর ১ গিগাহার্টজ কর্টেক্স এ-৯, NVIDIA টেগ্রা ২ টি২০ সিপিইউ চিপসেট। এর র‌্যাম ১ গিগাবাইট এবং অপারেটিং সিস্টেম এন্ড্রয়েড ৩.০ হানিকম্ব। সমসাময়িক অধিকাংশ ট্যাবের তুলনায় Acer এর এই ট্যাবটি হার্ডওয়্যার কনফিগারেশন-এ বেশ এগিয়ে। গেমিং এবং মাল্টিটাস্কিং-এ আমরা আশানুরূপ পারফরমেন্সই পেয়েছি।

Acer ট্যাবটির ফিচার এবং ইউজার ইন্টারফেসে যোগ করেছে নতুন কিছু এপ্লিকেশন যা অন্যান্য হানিকম্ব ট্যাব থেকে একটু আলাদা বৈশিষ্ট্য সম্পন্য। ট্যাবটিতে সংযোজিত হয়েছে কিছু কাষ্টমাইজড ব্যাকড্রপ ফোল্ডার। যেমন ই-রিডিং, মাল্টিমিডিয়া, সোস্যাল, গেমিং ইত্যাদি। প্রত্যেকটি ব্যাকড্রপ ফোল্ডারের রয়েছে নিজস্ব ব্যাকগ্রাউন্ড এবং নিজস্ব এপ্লিকেশন। যেমন ই-রিডিং এ আছে গুগল বুকস যা দিয়ে বিভিন্ন বই ফ্রি ডাউনলোড করে নিজের ইচ্ছা মতন ফন্ট সিলেক্ট করে পড়া যাবে, যা ই-বুক রিডারদের জন্য একটি সুখবর। ACER ট্যাবটিতে ক্লিয়ার-ফাই প্রযুক্তিরও ব্যবহার করেছে। এই প্রযুক্তির মাধ্যমে Wi-Fi ব্যবহার করে কোন তার ছাড়াই ভিডিও স্ট্রীম করা যায়।

Acer Iconia Tab A500 ট্যাবটির ডিসপ্লের রেজুলুশান ৮০০*১২৮০। এর পিকজেল ঘনত্ব ১৪৯ppi এবং ডিসপ্লেটি ২৫৬k কালার ডিসপ্লে। ট্যাবটির অন্যান্য ফিচারের সাথে এর ডিসপ্লের কালার সাপোর্ট (অর্থাৎ ২৫৬k)-এর বিষয়টি বেশ পিছিয়ে পড়া। যেখানে মোবাইল ফোনের স্ক্রিণেই এখন ১৬ মিলিয়ন কালার ব্যবহৃত হয় সেখানে ১০.১ ইঞ্চির এই ট্যাবে ২৫৬-ক কালার আমাদের কাছে অযাচিত বলে মনে হয়েছে। কম কালার সাপোর্টের কারণে ভিডিও প্লেব্যাক এবং গেমিং-এ আশানুরূপ কালার ডেপ্থ ও ডেনসিটি দিতে ব্যর্থ হয়েছে এই ট্যাবটি। Acer Iconia Tab A500 ট্যাবটির এই অসুবিধাটি এসার ট্যাব-প্রেমীদের অনেকাংশেই হতাশ করবে। ট্যাবটির ডিসপ্লে ব্রাইটনেসও যথেষ্ট বলে মনে হয়নি আমার কাছে। সূর্যালোকে ট্যাবটির স্ক্রিণ রিড করতে বেশ ঝক্কি পোহাতে হয়। ট্যাবটির প্রাইমারী ক্যামেরাটি উজ্জ্বল আলোতে ভালই ছবি তুলতে পারে। তবে কম আলোতে ছবির মান তেমন ভাল আসে নি। তবে এর ২ মেগাপিক্সেলের সেকেন্ডারী ক্যামেরা দিয়ে স্কাইপিং বা ভিডিও চ্যাটিং-এর মান আশানুরূপ ছিল। ভিডিও স্ট্রীমিং-এর কোয়ালিটি ও স্পিড ছিল আশানুরূপ।

acera500hAcer Iconia Tab A500 ট্যাবটির অন্যতম মূল আকর্ষণ হচ্ছে এর ULP Geforce জিপিইউ। NVIDIA এর এই গ্রাফিক্স চিপসেটটির পারফরমেন্স আমাদের মুগ্ধ করেছে। ট্যাবটির গেমিং পারফরমেন্স সত্যিই বেশ প্রংশসনীয়। প্রিলোডেড গেম হিরো অব স্পার্টা-এর গ্রাফিক্স কোয়ালিটি আমাদের মুগ্ধ করেছে। এনএফএস এর গ্রাফিক্স কোয়ালিটিও আমাদেরকে হতাশ করেনি।

3260 mAh Li-po ব্যাটারী ব্যবহৃত হয়েছে এই ট্যাবে। স্ট্যান্ডবাই মোডে ব্যাটারিটি প্রায় এক সপ্তাহ ব্যাকআপ দিয়েছে আমাদের। ট্যাবটির ব্যাটারী ব্যবহারকালীন সময় ৬.৩০ থেকে ৭ ঘণ্টা। তবে দুইবার স্ক্রীন বন্ধ থাকা অবস্থাতেও ট্যাবটির ব্যাকলাইট জ্বলে উঠে যা ব্যাটারী ব্যাকআপ সময় কমিয়ে দিতে পারে। বিভিন্ন টেস্টে প্রাপ্ত ফলাফলে মনে হয়েছে এটা ট্যাবটির নঁম এর সমস্যা। তবে এই সমস্যাটি সব A500 ট্যাবে নাও হতে পারে।

স্পেসিফিকেশন

acera500dপ্রোডাক্ট এর নাম: Acer Iconia Tab A500
ডাইমেনশন: ১০.২৪ x ৬.৯৭ x ০.৫২ ইঞ্চি)
ওজন: ৭৩০ গ্রাম
ডিসপ্লে: এলইডি ক্যাপাসিটিভ টাচস্ক্রীন, ২৫৬k কালার
মেমোরিঃ ১৬/৩২ গিগাবাইট (ইন্টারনাল), ১ গিগাবাইট র‌্যাম, মাইক্রো এসডি কার্ড ৩২ গিগাবাইট পর্যন্ত।
ক্যামেরা: ৫ মেগাপিক্সেল প্রাইমারি ক্যামেরা, অটোফোকাস, এলইডি ফ্ল্যাশ, ২ মেগালিক্সেল সেকেন্ডারী ক্যামেরা।
অপারেটিং সিষ্টেম: এন্ড্রয়েড হানিকম্ব ৩.০
প্রসেসরঃ ডুয়াল কোর ১ গিগাহার্টজ কর্টেক্স এ-৯, NVIDIA টেগ্রা ২ টি২০
জিপিইউ: ULP Geforce
ব্যাটারী: Li-po 3260 mAh

acera500gacera500f

Leave a comment